প্রতিটা দেশেই কিছু সীমান্ত থাকে। যে সীমান্ত দিয়ে এক দেশ আরেক দেশ থেকে পৃথক থাকে। বাংলাদেশে বেশ কিছু সীমান্ত এলাকা আছে। এর মধ্যে কিছু সীমান্ত এলাকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারন ওইসব এলাকা দিয়ে সীমান্ত পারাপার করে বিভিন্ন জিনিস যেমন আদান প্রদান হয় আবার মানুষ এক দেশ থেকে আরেক দেশে প্রবেশ করে। সেসব সীমান্ত এলাকাতে নিরাপত্তা অনেক কঠিন থাকে। আজকে আমরা বাংলাদেশের বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি সীমান্ত এলাকা নিয়ে কথা বলব। যার নাম বেনাপোল। আসুন শুরু করা যাক।

 

 

বেনাপোল আসলে বাংলাদেশের একটি গ্রাম। এটি সীমান্তবর্তী এলাকা। বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের মধ্যে এই গ্রাম অবস্থিত। আর এই গ্রামে রয়েছে বেনাপোল স্থল বন্দর। স্থল বন্দর বলতে এই স্থান দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে যাতায়াত করা হয় এবং বিভিন্ন জিনিস আমদানি রপ্তানি করা হয়। এজন্য বেনাপোল স্থল বন্দর একটি আন্তর্জাতিক স্থল বন্দর।

বেনাপোল কাস্টম হাউস

 

 

বেনাপোল কাস্টম হাউস

বেনাপোল এলাকা বাংলাদেশের যশোর জেলার শার্শা উপজেলার অন্তর্গত একটি এলাকা। এটি একটি ছোট শহর ধরনের। এর নিজস্ব একটি থানা আছে। এই থানার নাম বেনাপোল পোর্ট থানা। 0%A6%A6%E0%A6%B0" target="_blank">বেনাপোল বন্দর ৬১.৭০৫২ একরের উপর অবস্থিত। এই স্থল বন্দর হল বাংলাদেশের যত স্থল বন্দর আছে তাদের মূলকেন্দ্র।

 

 

বেনাপোল সীমান্ত শুধু ভারতের সাথে সংযুক্ত। বেনাপোলের বিপরীতে অর্থাৎ ভারতের যে অংশটি বেনাপোলের সাথে সংযুক্ত তার নাম পেট্রাপোল। এটি ভারতে পশ্চিম বঙ্গের বনগাঁ এলাকার সাথে যুক্ত। বেনাপোল থেকে কলকাতা খুব কাছে। মাত্র ৮০ কিমি দূরে কলকাতা।

 

 

বেনাপোল স্থল বন্দরে শুল্ক কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্বে আছে বেনাপোল কাস্টম হাউস। আর বন্দরের কাজ দ ??খাশুনার দায়িত্বে আছে বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষ। ভারতীয়রা ভারতের পাশটা দেখাশুনা করে। বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে বংলাদেশের মোট ৯০% স্থলবাণিজ্য সংঘটিত হয়।

বেনাপোল বন্দর

 

 

বেনাপোল বন্দর

বেনাপোল বন্দরে বাংলাদেশ থেকে মূলত পাট এবং পাটের তৈরি বিভিন্ন দ্রব্য, মাছ, সাবান, প্লাস্টিক পণ্য, ব্যাটারি, নির্মাণকালীন বিভিন্ন জিনিসপত্র রপ্তানি করা হয়। আর ভারত থেকে তুলা, বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থ, গাড়ি, মোটর সাইকেল, টায়ার টিউব, বিভিন্ন যন্ত্রের অংশবিশেষ, খাদ্য শস্য, মাছ, বিভিন্ন মশলা, চিনি, ডিম, বিভিন্ন আলুমিনিয়ামের জিনিস, ফ্রিজ, কাগজ ইত্যাদি আমদানি করা হয়।

 

 

যাতায়াত ব্যবস্থার জন্যও এই বেনাপোল স্থল বন্দর অনেক বিখ্যাত

? আপনি যদি কলকাতা যেতে চান তবে মূলত আপনাকে এই বেনাপোল বন্দর দিয়েই যেতে হবে। বাসে করে গেলেও আপনি এদিক দিয়ে যাবেন। আবার রেলগাড়ি দিয়ে গেলেও আপনাকে বেনাপোল রেলস্টেশন দিয়ে যেতে হবে। কারন বেনাপোল রেলস্টেশন দিয়ে বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন চলাচল করে।

 

 

এই বেনাপোল বন্দরে প্রায় ১২৩ জন প্রশাসনিক কর্মকর্তা, প্রায় ২৪২ জন নিরাপত্তা কর্মী ও প্রায় ২০০০ এর মত শ্রমিক কাজ করে। বাংলাদেশ ভারতের মধ্যে পণ্যবোঝাই ট্রাক বা গাড়ি চলাচল করে এই বেনাপোল দিয়ে। আবার অনেক মানুষও যাতায়াত করে। তাই এই বন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা অনেক জোরদার। বিশেষ করে সীমান্তে চোরাকারবার বন্ধ করতে এবং অনুপ্রবেশ রোধ করতে বেশ ভাল নিরাপত্তা বলয় আছে এখানে। এই বেনাপোল স্থল বন্দরের সীমান্ত এলাকা অর্থাৎ বেনাপোল- পেট্রাপোল সীমান্ত হল দক্ষিণ এশিয়া অঞ্ লের জন্য একটি ট্রানজিটের বারান্দা হিসেবে পরিচিত।

বেনাপোল স্থল বন্দর

 

 

বেনাপোল স্থল বন্দর

বেনাপোল বন্দরে সুযোগ সুবিধা এখনো খুব উন্নত নয়। এছাড়া পণ্য রাখার স্থান ও বেশ কম। সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে এই ব্যাপারে। এই গুরুত্বপূর্ণ বন্দরটিকে আর সুন্দর এবং অত্যাধুনিক করতে হবে। কারন ভবিষ্যতে এই বন্দর আর বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। সাথে নিরাপত্তাও জোরদার করতে হবে। কারন এটি সীমান্তবর্তী এলাকা।

 

 

সুত্র

Link

Link